1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ঝুলবে তালা!
বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৩২ অপরাহ্ন

  • আপডেটের সময় : নভেম্বর, ১৯, ২০২১, ৩:৫৬ অপরাহ্ণ
সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ঝুলবে তালা!
ছবি-সংগৃহীত

সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ঝুলবে তালা!

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: বার কাউন্সিল পরীক্ষায় অংশ নিতে পারছেন না সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করা ১৪৮ শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নির্দেশনা উপেক্ষা করে অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করায় ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তায় পড়েন তারা।

তাই প্রতিকার পেতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ২৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করে এই ১৪৮ শিক্ষার্থীর আবেদন জমা দিতে বলা হয়। কিন্তু জরিমানার টাকা প্রদান করেনি কর্তৃপক্ষ। এমন অবস্থায় শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের অনিশ্চয়তা কাটছেই না। তবে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা এবার আন্দোলনে নেমেছেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে আইন বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, ‘ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ আগামী রোববারের ভেতর জরিমানার টাকা প্রদান না করলে সোমবার ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকসহ প্রতিটি কক্ষে তালা লাগানো হবে।’

আন্দোলনরত শিক্ষার্থী তারেক আহমদ বলেন, ২০১৪ সালে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতি ব্যাচে ৫০ জনের ওপর শিক্ষার্থী ভর্তি না করতে বিজ্ঞপ্তি জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। কিন্তু নির্দেশনা উপেক্ষা করে মুনাফার লোভে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ আইন বিভাগের ২১, ২২, ২৩ ও ২৪-এই চার ব্যাচে ৫০ জনের অধিক শিক্ষার্থী ভর্তি করে। তাই বার কাউন্সিল পরীক্ষায় চার ব্যাচের ৫০ জনের অতিরিক্ত মোট ১৪৮ জনের আবেদন জমা নেয়নি কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ। এমন অবস্থায় অনিশ্চিত ভবিষ্যতের কথা বিবেচনায় উত্তরণের লক্ষ্যে ৮ মাস আগে এই ১৪৮ শিক্ষার্থীর পক্ষে হাইকোর্টে ২টি রিট (৫০৯১ ও ৫৩৭০) দাখিল করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী মো. আপতার মিয়া ও শফিকুল ইসলাম শফি। এ রিটের প্রেক্ষিতে জরিমানা প্রদান করে আমাদের আবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তা পালন করছে না।

শিক্ষার্থী তারেক আহমদ আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় তাদের ব্যাবসার জন্য আমাদের জীবন অনিশ্চয়তায় ফেলেছে।

এদিকে এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য প্রফেসর ড. মো. শহিদ উল্লাহ তালুকদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘এটি ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের উপর নির্ভর করছে। তারা টাকা না দিলে আমি কোথায় পাবো?

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /১৯ নভেম্বর ২০২১/ এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ