1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
বিশ্বনাথে স্কুল শিক্ষিকাকে নির্যাতনের অভিযোগে যুক্তরাজ্য প্রবাসী গ্রেপ্তার
শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ০৬:২২ অপরাহ্ন

  • আপডেটের সময় : এপ্রিল, ৮, ২০২১, ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বনাথে স্কুল শিক্ষিকাকে নির্যাতনের অভিযোগে যুক্তরাজ্য প্রবাসী গ্রেপ্তার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি: যৌতুক না দেওয়ায় স্কুল শিক্ষিকা স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ মুক্তার আলী (৪৯) নামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী স্বামীকে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে গ্রেপ্তার করেছে। মুক্তার আলী উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের নওধার পূর্বপাড়া গ্রামের হাজী মোশাহিদ আলীর পুত্র। গ্রেপ্তারকৃত মুক্তার আলী নিজের বৃট্রিশ পাসপোর্টকে পুঁজি করে কাবিন ছাড়াও একাধিক বিয়ে করে মানুষকে হয়রাণী করে আসছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

নির্যাতন করার অভিযোগে বুধবার একই উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের নওধার মাঝপাড়া গ্রামের চাঁন্দ আলীর কন্যা ও সাতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোছাঃ স্বপ্না বেগম (৩০) বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে তার স্বামী যুক্তরাজ্য প্রবাসী মুক্তার আলীকে একমাত্র অভিযুক্ত করে থানায় মামলা দায়ের করেছন। মামলা নং ৫ (তাং ৭.০৪.২০২১ইং)।

মামলার লিখিত অভিযোগপত্রে বাদী স্কুল শিক্ষিকা স্বপ্না বেগম উল্লেখ করেন, তার স্বামী যুক্তরাজ্য প্রবাসী মুক্তার আলী একজন প্রতারক প্রকৃতির লোক। তিনি (মুক্তার) লন্ডনে অবস্থান করে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কৌশলে প্রতারণা করে একাধিক মেয়েকে বিয়ে করেছেন। ২০১৯ সালে ইসলামী শরীয়া মোতাবেক পারিবারিক ও সামজিকভাবে স্বপ্না বেগমকে বিয়ে করেন মুক্তার আলী।

আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বিয়ে হলেও পারিবারিক বিভিন্ন ব্যস্থতার অজুহাত দেখিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নেন মুক্তার আলী। তিনি বিয়ের কাবিন রেজিষ্ট্রারী না করেই ৪মাস পর যুক্তরাজ্যে চলে যান। তিনি চলে যাওয়ার পর নিজ পিত্রালয়ে বসবাস করেন স্বপ্না বেগম। কয়েক মাস পর তাদের ঘরে একটি সন্তান জন্ম নিলেও সে জন্মের এক সপ্তাহ পর মারা যায়।

যুক্তরাজ্যে থাকাবস্থায় বিয়ের কাবির রেজিষ্ট্রীর কথা বললে তখন থেকে স্বপ্নার সাথে মুক্তার আলী খারাপ আচরণ শুরু করেন ও স্বপ্নাকে স্কুল থেকে চাকুরী ছেড়ে দিতে বলেন। এতে স্বপ্না অনিহা প্রকাশ করলে তার সাথে সকল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন মুক্তার। এরপর ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে মুক্তার দেশে ফিরে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মাধ্যমে পিত্রালয় থেকে স্ত্রী স্বপ্নাকে নিজ বাড়িতে (শশুরালয়) ফিরিয়ে নেন এবং বিয়ের কাবিন রেজিষ্ট্রী সম্পন্ন করেন।

কিন্তু কাবিন রেজিষ্ট্রী করাকে কেন্দ্র করে ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রী স্বপ্নাকে মারপিট করাসহ শারীরিক ও মানষিকভাবে নির্যাতন করতে থাকেন প্রবাসী মুক্তার। এরি মধ্যে তিনি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার কামালবাজার এলাকার আমিনা বেগম নামের আরেকজন মেয়েকে বিয়ে করে সিলেট শহরের একটি ভাড়াটিয়ে বাসায় রাখেন এবং সেখানেই রাত্রিবেলা মাদকদ্রব্য সেবন করে প্রতিনিয়ত স্বপ্নাকে নির্যাতন করেন মুক্তার। তিনি মাদকাসক্ত হওয়ায় মাদকদ্রব্য ক্রয় করতে বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে চক্রবৃদ্ধি সুদে টাকা ধার নিতেন এবং ওই সুদের টাকা পরিশোধ ও মাদক ক্রয় করতে স্ত্রী স্বপ্না বেগমকে চাপ সৃষ্টি করে তার বেতনের জমানো আড়াই লাখ টাকা নেন মুক্তার। এপর পিতার কাছ থেকে আরও ৫ লাখ টাকা যৌতুক এনে দেওয়ার দাবি করলে, তাতে স্বপ্না রাজি না হওয়ায় ২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি তাকে নির্যাতন ও মারধর করে গুরুতর জখম করেন করেন মুক্তার। পরদিন স্বপ্নার কর্মরত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকার মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পেরে স্বপ্নার পিতা শশুরালয় থেকে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যান।

ওই ঘটনার পর থেকে স্বপ্না পিত্রালয়ে বসবাস করে আসছিলেন। গত ১৮ মার্চ এলাকার গণ্যমান্য মুরব্বিদের উপস্থিতিতে শালিস বৈঠকে কোন প্রকার নির্যাতন না করার অঙ্গিকার করে স্ত্রী স্বপ্নাকে আবারও নিজ বাড়িতে নিয়ে যান মুক্তার।

কিন্ত বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর যৌতুকের টাকা দাবি করে আবারও তাকে নির্যাতন করতে থাকেন এবং গত ৫ এপ্রিল উত্তেজিত হয়ে ঘরের আসবাপত্র ভাংচুর ও স্বপ্না বেগমকে মারধর করে আহত করেন মুক্তার। এঘটনায় স্বপ্না বেগম বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে অভিযুক্ত মুক্তার আলীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলা দায়ের ও গ্রেপ্তারের সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামীম মুসা বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামী মুক্তার আলীকে বুধবার বিকেলে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম / ০৮ এপ্রিল ২০২১/ আরইউ


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ