1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
হোটেল রোজ গার্ডেনে রমরমা বাণিজ্য,কঠোর পুলিশি অভিযানের মধ্যেও চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ
শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন

  • আপডেটের সময় : এপ্রিল, ৬, ২০২১, ২:৫২ অপরাহ্ণ
শহরে ‘লকডাউন’ ভেঙ্গে হোটেল রোজ গার্ডেনে রমরমা বাণিজ্য,কঠোর পুলিশি অভিযানের মধ্যেও চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ ॥ স্থায়ীভাবে সিলগালা করে দেয়ার দাবী

হোটেল রোজ গার্ডেনে রমরমা বাণিজ্য,কঠোর পুলিশি অভিযানের মধ্যেও চলছে অসামাজিক কার্যকলাপ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: লকডাউন ভেঙ্গে রমরমা বাণিজ্য করছে শহরের শ্মশানঘাটস্থ কথিত অভিজাত শ্রেণীর আলোচিত আবাসিক হোটেল ‘রোজ গার্ডেন’। কঠোর পুলিশি অভিযানের মধ্যেও কৌশলে চলছে নানা অসামাজিক কার্যকলাপ। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে বিরাজ করছে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা।

জানা যায়, হবিগঞ্জ শহরের শ্মশানঘাট এলাকাস্থ শাহজালাল সুপার মার্কেটের ৩য় তলায় স্থাপিত হোটেল রোজ গার্ডেন-এর বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগ করছেন স্থানীয়রা। ইতিপূর্বে ওই হোটেল থেকে বেশ কয়েকবার পুলিশি অভিযানে খদ্দেরসহ যুবতীদের আটক করা হয়। কিন্তু তার পরও থামছে না তাদের এ রমরমা বাণিজ্য। সম্প্রতি যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবক ও হোটেল ম্যানেজারকে আটক করে পুলিশ।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে একাধিক অদিবাসী ও ব্যবসায়ী জানান, করোনা পরিস্থিতির কারনে সোমবার থেকে লকডাউন শুরু হলেও কৌশলে ওই হোটেলটি খোলা রাখা হয়েছে। কঠোর পুলিশি অভিযানের মধ্যেও চলছে রমরমা বাণিজ্য। প্রতিদিনই এখানে আনা-গোনা দেখা যায় উঠতি বয়সী যুবক-যুবতীদের। সামনে পবিত্র রমজান মাস, এ অবস্থা চলতে থাকলে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে।

তারা জানান, একশ্রেণীর দালালের মাধ্যমে হবিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থান এবং জেলা বাইরে থেকে খদ্দের সংগ্রহ করে হোটেল কর্তৃপক্ষ। এ জন্য ওই দালালদের দেয়া হয় মোটা অংকের কমিশন। এছাড়াও হোটেলের আশ-পাশের এলাকায় সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করে কর্তৃপক্ষের নিযুক্ত আরেকদল দালাল। পুলিশ দেখলেই ওই দালালরা খবর পৌছে দেয় হোটেল ম্যানেজারের কাছে। খবর পেয়ে কৌশলে অনৈতিক কাজে নিয়োজিত যুবতীদের সরিয়ে দেয় ম্যানেজার। এছাড়াও আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের সাথে ঘনিষ্ট সম্পর্ক রয়েছে এমন ব্যক্তিদের কাছ থেকে আগে-ভাগেই পৌছে যায় অভিযানের খবর। যে কারণে অনেক অভিযানই নিস্ফল হয় আইনশৃংখলা বাহিনীর।

সচেতন মহল মনে করেন, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও উঠতি বয়সি যুবক-যুবতীদেরকে বিপদগামীতার হাত থেকে বাঁচাতে হোটেলটি স্থায়ীভাবে সিলগালা করে দেয়া উচিত।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে হোটেল ম্যানেজারের পরিচয়ধারি সোহাগ আহমেদ নামে এক ব্যক্তি পূর্বের অভিযোগ ও অভিযানের বিষয়টি স্বীকার করলেও বর্তমানে লকডাউনের কারণে হোটেলটি বন্ধ রয়েছে বলে জানান তিনি।

জানতে চাইলে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মোঃ মাসুক আলী জানান, ইতিপূর্বে এ হোটেলে অভিযানের মাধ্যমে ম্যানেজারসহ ২ জনকে আটক করা হয়। বর্তমানেও অভিযান অব্যাহত আছে।

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /০৬ এপ্রিল ২০২১/ এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ