1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
নগরীতে সিএনজি’র ইচ্ছে খুশি ভাড়া আদায়
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৬:১৩ অপরাহ্ন

  • আপডেটের সময় : ফেব্রুয়ারি, ২১, ২০২১, ২:২৪ অপরাহ্ণ
আজ থেকে সিলেটে সিএনজি-অটোরিক্সার ৪৮ ঘন্টার ধর্মঘট শুরু
ছবি -রেজওয়ান আহমদ

নগরীতে সিএনজি’র ইচ্ছে খুশি ভাড়া আদায়

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: নগীরতে সিএনজি অটোরিকশা’র ভাড়া নিয়ে প্রতিনিয়ত বিপাকে পড়তে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দা ও আগত দর্শনার্থীদের। কিছু দিন আগেও নগরীর মধ্যে ৫০/৬০ টাকা ভাড়ায় সিএনজি পাওয়া গেলেও এখন আর পাওয়া যায় না। দূরত্ব বুঝে ১০০ থেকে ২৫০ টাকা পর্যন্ত ভাড়া আদায় করতে দেখা যায়। বিশেষ করে ভুক্তভোগী হচ্ছেন সিলেট আগত দর্শনার্থীরা। বিভিন্ন পরীক্ষা বা বিশেষ দিবসে ভাড়া বেড়ে যায় দ্বিগুণ।

এছাড়া, সরকারি হাসপাতাল, অফিস আদালত প্রাঙ্গণে গড়ে ওঠা স্ট্যান্ডগুলোতেও এই হয়রানীর শিকার হতে দেখা যায় অনেককে। তাই সিএনজির ভাড়া নির্ধারণ করে দেয়ার দাবি উঠেছে বিভিন্ন মহলে।

শুক্রবার সকালে সরেজমিনে নগরীর পাঁচ ভাই ও পানসী রেস্টুরেন্টের সামনে গিয়ে দেখা যায়, রেস্টুরেন্ট দুটির সামনে গড়ে ওঠা স্ট্যান্ড থেকে আগত দর্শনার্থীদের সিলেটের দূরের অদূরের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানের নাম বলে ডাকছেন সিএনজি চালকরা। এসময় এক দম্পতি সিলেটের লাক্কাতুরা চা বাগানে যেতে চাইলে তাদের কাছে আড়াইশ’ টাকা দাবি করেন সিএনজি চালক। তখন তারা গুগল ম্যাপে সার্চ দিয়ে দেখেন জিন্দাবাজার থেকে চা বাগানের দূরত্ব মাত্র দেড় কিলোমিটার। এই দূরত্বে ভাড়া সর্বোচ্চ ৬০/৭০ টাকা হবার কথা। এই ভাড়া যাবেন কিনা জানতে চাইলে সিএনজি চালকরা না করে দেয়। এমনকি রাস্তা থেকে গাড়ি নিতে দেয় না যত্রতত্র গড়ে ওঠা এসব স্ট্যান্ডের চালকরা। এরকম সিলেটের দূরবর্তী দর্শনীয় স্থানগুলোতেও যে যার মতো করে ভাড়া নিচ্ছে। বিভিন্ন পাড়া মহল্লার গলির মুখে গড়ে ওঠা এসব সিএনজি সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি নগরবাসী ও আগত দর্শনার্থীরা।
ওসমানী হাসপাতালের বর্হিবিভাগের সামনে লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় সিএনজি অটোরিকশা। আগত রোগী ও তাদের স্বজনদের কাছ থেকে ভাড়া দ্বিগুণ আদায় করতে দ্বিধা বোধ করেন না সিএনজি চালকরা।

নগরীর মির্র্জাজাঙ্গাল এলাকার বাসিন্দা শফিক জানান, ছেলের চিকিৎসা শেষে মেডিকেল থেকে বাড়ি ফিরবো, গেটের সামনে সিএনজি সারি দেখে জিজ্ঞেস করলাম মির্র্জাজাঙ্গাল যাবে কিনা? বলল যাবে কিন্তু ভাড়া ১৫০ টাকা। এতো ভাড়া কেন জানতে চাইলে চালক বলেন, গেইটে টাকা দিতে হয়। তাই বাড়তি ভাড়া নিচ্ছি। অসুস্থ রোগী নিয়ে বাধ্য হয়ে এই ভাড়ায় যেতে হয় তাদের।

নগরীর কাজলশাহ এলাকার বাসিন্দা তুহিন আহমদ বলেন, সিএনজি অটোরকিশার ভাড়াটাও নির্ধারণ করে দেয়া এখন সময়ের দাবি।

এব্যাপারে জানতে চাইলে সিলেট জেলা সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জাকারিয়া আহমদ বলেন, অতিরিক্তি ভাড়া আদায় করা নীতি বিরোধী। লামাবাজার থেকে জিন্দাবাজার রোডে আমাদের কোনো স্ট্যান্ড নেই। যারা ভাসমান স্ট্যান্ড করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হউক। আর ভাড়া নির্ধারণ করে দেয়া হউক আমরাও চাই। প্রশাসন ভাড়া নির্ধারণ করে দিলে আমরা প্রতিটি গাড়িতে সেই চার্ট লাগিয়ে দিবো।

এব্যাপারে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের তথ্য কর্মকর্তা জয়দেব বিশ্বাস বলেন, ইতোমধ্যে সিলেট সিটি কর্পোরেশন রিকশা ভাড়া নির্ধারণ করে দিয়েছে। আমরা খুব শীঘ্রই বিআরটিএর সাথে আলাপ করে সিএনজি চালিত অটোরিকশার ভাড়া নির্ধারণ করে দিবো। সৌজন্য দৈনিক জালালাবাদ

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১/ এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ