1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
বিশ্বনাথে জোরপূর্বক গাছ কাটা মামলা করে হয়রানিতে আ’লীগ নেতা
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

  • আপডেটের সময় : ফেব্রুয়ারি, ২০, ২০২১, ১১:১২ অপরাহ্ণ
বিশ্বনাথ

বিশ্বনাথে জোরপূর্বক গাছ কাটা মামলা করে হয়রানিতে আ’লীগ নেতা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:বিশ্বনাথে নিজ বসতবাড়ির সামনে সালিশকারীর উপস্থিতিতে জোরপূর্বক গাছ কেটে ফেলা হয়। এ ঘটনায় আদালতে এজাহার দেওয়ার পর বিশ^নাথ থানায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দেওয়া হয়। কিন্তু মামলা নেওয়ার পর থেকে থানা পুলিশ ও সালিশকারীদের দ্বারা নানা হয়রানির শিকার হচ্ছেন মামলার বাদী ফেরদৌস আজিজ বাবলু (৪০)। হরিপুর গ্রামের বাসিন্দা বাবলু উপজেলার খাজাঞ্চি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রাক্তণ দপ্তর সম্পাদক প্রয়াত আজিজুর রহমান মাষ্টারের ছেলে। তিনিও খাজাঞ্চি ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং ওই ইউনিয়নের বঙ্গবন্ধু শিশুকশোর মেলার সভাপতি।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, ফেরদৌস আজিজ বাবলুর বসত ঘরের সামনের গাছপালা নিয়ে পাশের বাড়ির নানু মিয়ার (৩৫) সঙ্গে মতবিরোধ সৃষ্ঠি হয় দু’জনের। এনিয়ে সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এতে গ্রামের মুরব্বীদের স্থানীয় হোসেনপুর গ্রামের বাসিন্দা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা কবির আহমদ কুব্বারও সালিশে যান। এক পর্যায়ে বৈঠকে গাছ কাটার সিদ্ধান্ত হলে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা কবির আহমদ কুব্বারের নেতৃত্বে প্রায় আড়াই লাখ টাকার নারিকেল, কাঠালসহ বড় বড় বেশ কয়েকটি গাছ কেটে ফেলা হয়। এ ঘটনায় গত ৩১ জানুয়ারি সিলেটের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ১ম আদালতে বাদি হয়ে বিশ্বনাথ (দ্রুত) সি,আর মামলা করে বিপাকে পড়েন অপর আওয়ামী লীগ নেতা বাবলু। আর আদালতের নির্দেশে বিশ^নাথ থানায় দ্রুত বিচার আইনে গত ৫ ফেব্রুয়ারি এ মামলাটি রজ্জু করা হয়, (মামলা নং ৭)। আর ওই মামলায় প্রধান আসামি করা হয় উপজেলা আ’লীগ নেতা কবির আহমদ কুব্বারকে (৫২)।

বাদীর আজিজুর রহমান বাবলুর অভিযোগ, তিনি থানায় মামলা দায়ের করে বিপদে পড়েছেন। একদিকে আসামি কুব্বারসহ অন্য আসামিদের হুমকি ধামকি আর অন্যদিকে তদন্তকারী কর্মকর্তা তাকে নানাভাবে হয়রানি করে যাচ্ছেন। এই ভয়ে বর্তমানে তিনি চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।

মামলার প্রধান আসামি উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা কবির আহমদ কুব্বার বলেন, সালিশের সিদ্বান্ত ও উপস্থিতিতেই গাছ কাটার পর থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে, এ পর্যন্ত তিনি কাউকে হুমকি ধামকি দেননি। এছাড়া গাছ কাটার দিন আরও দুই শতাধিক লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই সঞ্জয় দেব বলেন তিনি কাউকে অযথা হয়রানী করেননি। আর ভুল তথ্য উপস্থাপন করে মামলা করায় দীর্ঘ তদন্তের পর এরই মধ্যে আদালতে প্রতিবেদনও দাখিল করেছেন।

সিলেটপ্রেসবিডি/ আরইউ


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ