1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
প্রকৃতিপ্রেমীদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে গোলাপগঞ্জের এরাল বিল
রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন

  • আপডেটের সময় : জানুয়ারি, ১১, ২০২১, ১:৪১ পূর্বাহ্ণ
প্রকৃতিপ্রেমীদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে গোলাপগঞ্জের এরাল বিল
ছবি-সংগৃহীত

প্রকৃতিপ্রেমীদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে গোলাপগঞ্জের এরাল বিল

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: গোলাপগঞ্জ উপজেলার আমুড়া ইউনিয়নের প্রায় ২০ একর জায়গা এখন লাল শাপলার অপরূপ সৌন্দর্যের এক লীলাভূমি। সূর্যের আভাকেও যেন হার মানিয়েছে এ বিলের পানিতে লতাপাতা গুল্মে ভরা শত সহস্র লাল শাপলা। এ যেন প্রকৃতির বুকে আঁকা এক নকশি কাঁথা। বিলটিতে প্রতিবছর শীত মৌসুমে লাল ও সাদা রঙের অজস্র শাপলা ফুল ফুটে।

প্রায় ২০ একর জায়গার মধ্যে জন্ম নেয়া লাল শাপলাগুলো একনজর দেখার জন্য সূর্যোদয় থেকে শুরু করে সূর্যাস্ত পর্যন্ত নানা বয়সের মানুষের ভিড় লেগে থাকে। পর্যটকদের আনাগোনায় দিনদিন মুখরিত হচ্ছে এ এলাকা।

শাপলার মাঝে বাংলার চিরন্তন রূপ খুঁজে পাওয়া যায়। তাই শাপলা বাংলাদেশের জাতীয় ফুল। শুধু সৌন্দর্যই নয়, সুস্বাদু খাবার হিসেবেও শাপলার বেশ কদর রয়েছে। শাপলা ফুলের অপরূপ শোভা সৌন্দর্য পিয়াসী মানুষকে বিমোহিত করে। হাজারো ফুলের ভিড়েও শাপলা স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যম-িত। শাপলার মতো সরল অথচ নয়নাভিরাম সৌন্দর্যমন্ডিত বৈশিষ্ট্য অন্য কোনো ফুল নেই। বাংলাদেশের সকল জায়গায় শাপলা পাওয়া যায়। তাই শাপলাকে জাতীয় ফুলের মর্যাদা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের মুদ্রায়ও শাপলার প্রতিচ্ছবি রয়েছে। দীঘি-নালা-খাল-বিলে পরিপূর্ণ বাংলাদেশর শাপলা ফুলের সৌন্দর্যে মুখরিত করেছে বলে শাপলাকে জাতীয় ফুল হিসেবে আখ্যা দেয়া হয়েছে। গোলাপগঞ্জ উপজেলার এরাল বিলের লাল শাপলার সৌন্দর্য উপভোগ করতে পর্যটক আসে বহু দূর দূরান্ত থেকে । সূর্য উদয় ক্ষণে সূর্য রশ্মি পড়া মাত্রই যেন মন পাগল করা এক সৌন্দর্যের লীলাভূমিতে পরিণত হয় এরাল বিল। এ ছাড়া সন্ধ্যার সূর্য অস্তমিত মুহূর্তে মনে হয় যেন মেঘ মালায় ঢেকে যাওয়া এক অপরূপ দৃশ্য। এরাল বিলের লাল শাপলার সৌন্দর্য উপভোগ করে ক্ষণিকের জ্বালা যন্ত্রণা দূর করা যায়। এখানে এলে মন কেড়ে নেয়া দৃশ্য রেখে কারোরই মন চায় না আর ফিরে যেতে।

বর্তমানে বিলটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও অতিথি পাখির কিচিরমিচির কলরবে মুখরিত থাকে সকাল থেকে সন্ধ্যা। ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখিদের উড়ে যাওয়ার মনোমুগ্ধকর দৃশ্য নজর কাড়ে সবার।

গোলাপগঞ্জ পৌরশহর থেকে আসা পর্যটক সেলিনা বেগম জানান, তিনি প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে ছুটে এসেছেন। শাপলা বিলের সৌন্দর্য অবগাহনে তিনি পুলকিত ও মুগ্ধ।

ঘুরতে আসা কলেজ শিক্ষার্থী সাকিল, আশরাফ সহ একই অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন আরও অনেকে।

পরিবার নিয়ে ঘুরতে এসেছেন তানভীর আহমেদ। একসঙ্গে এত শাপলা দেখে মন ভরে গেছে তার। তবে তিনি জৈন্তা বার্তার কাছে একটা আক্ষেপের কথা বলেছেন, এখানে ছোট ছোট কয়েকটি দীপ রয়েছে এসব দীপে বসার ব্যবস্তা করলে সুবিধা হতো। তাহলে আরেকটু সময় নিয়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারতাম।’

গোলাপগঞ্জের এরাল বিলে শাপলার সৌন্দর্য সম্পর্কে স্থানীয় সংবাদকর্মী সামিল হোসেন জৈন্তা বার্তাকে জানান, এখানে অনেক শাপলা ফুল ফুটছে । স্থানীয়দের পাশাপাশি দূর-দূরান্ত থেকে দর্শনার্থীরা এসে নৌকায় চড়ে এখানকার মনোরম সৌন্দর্য উপভোগ করে। এর মাধ্যমে নৌকা চালিয়ে স্থানীয় কিছু মানুষের জীবিকা নির্বাহের পথ তৈরি হয়েছে।

 

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /১১ জানুয়ারি ২০২১/ এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ