1. [email protected] : Faisal Ahmed : Faisal Ahmed
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
বৈরাগীবাজারের স্বাধীন সুন্দরীর প্রাণের আকুতি শোনার মানুষ নাই
রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ১২:১১ পূর্বাহ্ন

  • আপডেটের সময় : ডিসেম্বর, ১৭, ২০২০, ৭:৩৭ অপরাহ্ণ
বৈরাগীবাজারের স্বাধীন সুন্দরীর প্রাণের আকুতি শোনার মানুষ নাই

বৈরাগীবাজারের স্বাধীন সুন্দরীর প্রাণের আকুতি শোনার মানুষ নাই

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অতিথি প্রতিবেদক :: ১৬ ই ডিসেম্বর একটি হৃদয় বিদারক ও অমানবিক সমাচার সম্বলিত সংবাদটি পড়ে রীতিমত হতবাক বনে গেলাম !

একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত সংবাদ শিরোনামটি ছিল — ‘পরিবার ছাড়া কেউ মনে রাখেনি বিয়ানীবাজারের শহীদ জামালকে!’

বৈরাগীবাজারের শহীদ জামালের নাম শুনে নাই অত্র এলাকায় এমন লোক খুব কমই আছেন।

১৯৭১ সালের ১৩ জুলাই রাজাকারদের সহযোগিতা নিয়ে পাকিস্তানি সেনারা বিয়ানীবাজার উপজেলার বৈরাগী বাজারের (সড়কভাংনি) খশির গ্রামের জামালকে খুঁজে বেড়ায়।

১৪ জুলাই ৭১-এ প্রত্যুষে ভারত চলে যাবার প্রাক্কালে স্থানীয় রাজাকারেরা জামালকে ঘিরে ফেলে। পরে রাজাকাররা জামালকে পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে তুলে দিলে সারা রাত নির্যাতন করে পাক পাষন্ডরা পরদিন তাঁকে বিয়ানীবাজার থানার পেছনে কাঁঠালতলায় নিয়ে গুলি করে হত্যা করে।

মুক্তিযুদ্ধকালীন পাক বর্বরদের হাতে এভাবে নির্মম হত্যাযজ্ঞের শিকার হওয়া জামাল আজ ৪৯ বছরেও পাননি শহীদের স্বীকৃতি। পুত্র জামালের ‘শহীদ’ হওয়ার স্বীকৃতি তাঁর মা দেখে যেতে পারেননি। দেখে যেতে পারেন নি তাঁর স্ত্রী নেহারুন বেগমও ।

এর চেয়ে অবাক করার কী আছে জানিনা অথচ পাক হানাদার জামালকে হত্যা করেছে যা তাঁরার মত উজ্জ্বল ও দিবালোকের মত সত্য একটি ঘটনা ।

ঘটনা প্রবাহ সাক্ষ্য প্রমানে পরিস্কার একটি সত্যকে অগ্রাহ্য করে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র কিভাবে ও কেন শহীদ জামালকে স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরেও শহীদের স্বীকৃতি দিতে পারলো না তা বিয়ানী বাজারের জনগণকে ভাবিয়ে তুলেছে।

স্মৃতিস্তম্ভ তৈরী হল। শহীদ জামাল স্মৃতি সংসদ হল। মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয় থেকে শুরু করে স্থানীয় প্রশাসনের সব জায়গায় শহীদ পিতার স্বীকৃতি পেতে আবেদন করা হল কিন্তু আজ অবধি শহীদ বাবার শহীদের স্বীকৃতি পাননি শহীদ জামালের কন্যা স্বাধীন সুন্দরী ।

স্বাধীন সুন্দরীর একটাই কামনা, মরার আগে তিনি তার শহীদ পিতার ‘শহীদ’ স্বীকৃতি দেখে যেতে চান। প্রতিবছর মহান বিজয় দিবসে বৈরাগীবাজার তিমুকিতে স্থাপিত তার পিতার স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন পিতৃহারা মেয়ে স্বাধীন সুন্দরী।

বিষয়টি বিয়ানীবাজার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড , বিয়ানী বাজার মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ, বিয়ানীবাজার আওয়ামীলীগ ও প্রশাসনিক দিক থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাও এর দায় এড়াতে পারেন না।

বিয়ানীবাজারের ত্বরিতকর্মা, কর্মঠ ও মানবিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার সমীপে আমরা বিয়ানীবাজারের সকল সাধারণ মানুষের দাবী —

ভুক্তভোগী পরিবারের আবেদন নিবেদনের প্রেক্ষিতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের নিমিত্তে মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করতঃ বিষয়টি সম্পাদন করে দেয়ার জন্য আপনার যথাপোযুক্ত সহযোগিতা কামনা করছি ।

 

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /১৭ ডিসেম্বর ২০২০/এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ