1. [email protected] : Developer :
  2. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
সুনামগঞ্জ-তাহিরপুর সড়কের বেহালদশা
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন

  • আপডেটের সময় : নভেম্বর, ২০, ২০২০, ৬:৪১ অপরাহ্ণ
সুনামগঞ্জ-তাহিরপুর সড়কের বেহালদশা
ছবি-সংগৃহীত

সুনামগঞ্জ-তাহিরপুর সড়কের বেহালদশা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: সুনামগঞ্জ সুরমা নদীর উপর নির্মিত আব্দুজ্জহুর সেতুর পশ্চিমপাড় (আম্বর পয়েন্ট) থেকে লালপুর হয়ে চালবন বাজার (পয়েন্ট)এই ৭ কিলোমিটার সড়কটি বর্তমানে যান চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। রাস্তা জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য ছোট বড় গর্ত। পায়ে হেঁটে চলা এখন দায়।

যাতায়াতের বিকল্প কোন রাস্তা না থাকায় প্রয়োজনের তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ পথে চলাচল করতে গিয়ে প্রতিদিন দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন হাজারো পথচারি। মাঝে মধ্যে রাস্তায় বিকল হয়ে পড়ছে যানবাহন। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে সড়কটির বেহালদশা থাকলেও সংস্কারের জন্য কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের। ফলে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করছেন পথচারী ও যানবাহন চালকরা।

জানা গেছে, এই সড়ক দিয়ে তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর দুই উপজেলার ৮ হাজার লোক প্রতিদিন যাতায়াত করছে এবং উক্ত উপজেলায় সরকারী বেসরকারী অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, উপজেলা পরিষদ,সরকারি কলেজ, হাসপাতাল, থানা, কৃষি অফিস, সমাজসেবা অফিস এসব অফিসে কর্মরত সরকারী বেসকারি সকল কর্মকতা-কর্মচারী, শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা এই সড়ক দিয়েই প্রতিদিন চলাচল করেন। জেলা শহর থেকে তাহিরপুর উপজেলা যেতে সময় লাগার কথা ৬০ মিনিট। কিন্তু ৩৫ কিলোমিটার পথ যেতে এখন সময় লাগছে দুই থেকে আড়াই ঘন্টা।

লালপুর বাজারের সিয়াম এন্ড কনফেকশনারী ব্যবসায়ী আলম হোসেন বলেন, সুনামগঞ্জ-তাহিরপুর সড়ক এর আম্বর পয়েন্ট থেকে চালবন অংশ যানবাহন চলাচলের অনুপোযোগী হওয়ায় জেলা শহর থেকে পরিবহন ভাড়া দিগুণ দিয়ে মালামাল বহন করতে হচ্ছে। এতে প্রতিদিন ব্যবসায়ীদের ব্যবসায় ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।

সদর উপজেলার ভাদেরটেক সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ফারুক আহমদ বলেন, সুনামগঞ্জ-তাহিরপুর সড়ক বিগত বছর দুয়েক পুর্বে সংস্কার করা হলেও এ বছর তিন দফা বন্যা ও ভারী বর্ষণ এবং পাহাড়ি ঢলে সড়কে অসংখ্য খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। তাই আজ আমাদের দুর্দশার অন্ত নেই। জীবিকার প্রয়োজনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে সড়কটির সংস্কার ও কাজের গুনগত মান সঠিক রেখে ও কম সময় নিয়ে শেষ করার দাবি জানান।

পলাশ ইউনিয়নের রাজঘাট গ্রামের সিএনজি চালক এমদাদুল হক বলেন, সড়কে যাত্রী নিয়ে চলাচলে খুব সমস্যা হয়। যাত্রী গাড়িতে উঠতে চায় না ভয় পায় কখন যেন গাড়ি গর্তে পড়ে উল্টে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটে।

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ওসমান মিয়া বলেন, সড়কটি মেরামতের জন্য জুন ২০২০ইং প্রকল্পটি সিলেট বিভাগীয় অফিসে পাঠিয়েছি অনুমোদন পাওয়া গেলে শিগগিরই কাজ শুরু হবে। কাজের গুনগত মান সঠিক রেখে সড়ক সংস্কার করা হবে। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের সজাগ দৃষ্টি রয়েছে।

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /২০ নভেম্বর ২০২০/এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ