1. [email protected] : Developer :
  2. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
বাংলাদেশে বন্ধ স্টার জলসা ও স্টার প্লাসসহ ভারতীয় চ্যানেল
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

  • আপডেটের সময় : নভেম্বর, ৬, ২০২০, ৭:৫৪ অপরাহ্ণ
বাংলাদেশে বন্ধ স্টার জলসা ও স্টার প্লাসসহ ভারতীয় চ্যানেল
ছবি-সংগৃহীত

বাংলাদেশে বন্ধ স্টার জলসা ও স্টার প্লাসসহ ভারতীয় চ্যানেল

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: গত দুই দিন ধরে বাংলাদেশে বন্ধ রয়েছে স্টার জলসা, স্টার প্লাসসহ আরও কয়েকটি ভারতীয় টিভি চ্যানেল। সমগ্র কিছু কিছু জায়গায় দেখা যাচ্ছে চ্যানেলগুলো। ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ ঘোষণা করা কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) জানিয়েছে, দেশের মোট ৭৫ শতাংশ দর্শক ও রাজধানীর প্রায় ৯০ শতাংশ দর্শক এসব চ্যানেল দেখতে পারছে না। চ্যানেলগুলোর পরিবেশক জাদু ভিশনের সঙ্গে দ্বন্দ্বের সমাধান হওয়ায় বাংলাদেশে স্টার গ্রুপের ওই চ্যানেলগুলো বুধবার থেকে এ বন্ধ কার্যক্রম শুরু করেছে ক্যাবল অপারেটররা।

কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজ সাংবাদিকদের জানান, ‘পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৪ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে স্টার গ্রুপের (স্টার প্লাস, স্টার জলসা, ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক, স্টার গোল্ড ও লাইফ ওকে) সম্প্রচার বন্ধ রেখেছে কেবল অপারেটররা।’

তবে যেসব অপারেটর কোয়াবের সদস্য নয়, তারা সম্প্রচার চালু রেখেছে জানিয়ে আনোয়ার পারভেজ বলেন, ‘আমরা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছি, এর ফলে দেশের মোট ৭৫ শতাংশ দর্শক এবং ঢাকার প্রায় ৯০ শতাংশ দর্শক এসব চ্যানেল দেখতে পারছে না।’

গত ২৮ অক্টোবর কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) ঐক্য পরিষদের এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, জাদু ভিশনের বিভিন্ন নেটওয়ার্কে বন্ধ করে দেওয়া স্টার গ্রুপের সিগন্যাল পুনঃসংযোগ না দিলে ৪ নভেম্বর থেকে এসব চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হবে।

বর্তমানে বাংলাদেশে চারটি বিদেশি পে-চ্যানেল পরিবেশক রয়েছে। এর মধ্যে জাদু ভিশন লিমিটেড স্টার গ্রুপের (স্টার প্লাস, স্টার জলসা, ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক, স্টার গোল্ড ও লাইফ ওকে) বাংলাদেশের পরিবেশক হিসেবে ২০১০ সাল থেকে ব্যবসা করে আসছে।

জাদু ভিশনের মালিকানা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রয়াত আনিসুল হকের ছেলে নাভিদুল হকের।

জাদু ভিশন লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কুনাল দেশমুখ বলেন, “বর্তমানে দেশে ৬০০ এর উপর বৈধ কেবল অপারেটর রয়েছে, যাদের মধ্যে অল্প কিছু সংখ্যক কেবল অপারেটর নিজেদের কোয়াব ঐক্য পরিষদ বলে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন সময়ে অবাঞ্ছিত কিছু বিষয় সামনে নিয়ে এসে নিজেদের আধিপত্য প্রমাণের চেষ্টা করছে।”

 

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /০৬ নভেম্বর ২০২০/এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ