1. [email protected] : Developer :
  2. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
প্রেক্ষাপট জমি নিয়ে বিরোধ :বাহুবলে মিথ্যা মামলায় দিশেহারা বৃদ্ধ
রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০১:৫০ অপরাহ্ন

  • আপডেটের সময় : অক্টোবর, ২০, ২০২০, ৯:২৬ অপরাহ্ণ
প্রেক্ষাপট জমি নিয়ে বিরোধ :বাহুবলে মিথ্যা মামলায় দিশেহারা বৃদ্ধ
ছবি-প্রতিনিধি

প্রেক্ষাপট জমি নিয়ে বিরোধ :বাহুবলে মিথ্যা মামলায় দিশেহারা বৃদ্ধ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্টাফ রিপোর্টার :: হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার পল্লীতে ভিটেমাটি থেকে উচেছদ করার অপচেষ্টায় একের পর এক প্রতিপক্ষের দায়ের করা মিথ্যা মামলায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন বৃদ্ধ মৌলদ হোসেন। মিথ্যা মামলায় দিশেহারা হয়ে এর প্রতিকার চেয়ে মানবাধিকার কমিশনে আবেদন করেছেন বৃদ্ধ মৌলদ হোসেন। হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার পশ্চিম ভাদেশ্বর গ্রামের বাসিন্দা মৌলদ হোসেন।

মানবাধিকার কমিশন বরাবরে আবেদনে উল্লেখ করা হয় মৌলদ হোসেন ২০১৩ সালের ৬ নভেম্বর তারিখের ৩০৭৪ নং রেজিস্ট্রারী দলিলে১১৮ শতক জমি খরিদ করে বসতবাড়ি তৈরি করে বসবাস করছেন। সেটেলমেন্ট জরিপে ওই জমির স্বত্বলিপি তার নামে আসে। তার খরিদা জমির ওপর কুনজর পড়ে প্রতিবেশী মৃত আছান আলীর পুত্র তাজুল ইসলামের। তাজুল ইসলাম ওই জমির একাংশে মালিকানা দাবি করে অনধিকারেঅনুপ্রবেশ করে ঘর নির্মাণের মাধ্যমে বসবাস করছে এবং মৌলদ হোসেনকে ভিটেমাটি ছাড়া করতে নানা অপচেষ্টা চালায়।

এ বছরের ৩ মার্চ তার সহোদর বোনকে লুকিয়ে বাহুবল মডেল থানায় ০৩/০৩/২০২০ তারিখের লচ ১৩১ নং নিখোঁজ জিডি করে। জিডির করার পরের দিন জিডির সুত্র ধরে হবিগঞ্জের বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে বৃদ্ধ মৌলদ হোসেন ও তার সহচরদের নামে ৬০/২০২০ নং একটি অপহরন মামলা দায়ের করে।

মামলাটি বাহুবল মডেল থানায় তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য আসলে ওসি তদন্ত আলমগীর কবির মামলা টি তদন্ত করে ০৪/০৪ /২০২০ ইং তারিখে চুড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। চুড়ান্ত রিপোর্ট দাখিলের পর তাজুল ইসলাম বাহুবল মডেল থানায় হাজির হয়ে জানায় তার নিখোঁজ হওয়া বোন লুবনা আক্তারকে সিলেটের গোয়াইনঘাট এলাকার নলজুরী নামক স্হানে পাওয়া গেছে।

বাহুবল মডেল থানায় এ বিষয়ে ১৭/০৪/২০২০ ইং তারিখে ৬৭২ নং জিডিতে লিপিবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। ইতিপূর্বেও তাজুল ইসলামের মা আছিয়া খাতুন বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে মৌলদ হোসেনের নামে ৬৫৭/২০১৪ নং নারী নির্যাতন মামলা দায়ের করে।

মামলাটি তদন্ত প্রতিবেদনের জন্য বাহুবল থানায় আসলে থানার এস আই ছবিউর রহমান মামলাটি তদন্ত করে সত্যতা না পেয়ে চুড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। বৃদ্ধ মৌলদ হোসেন অভিযোগ করেন এ ভাবে একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে হয়রানী করা হচ্ছে।

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /২০ অক্টোবর ২০২০/এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ