1. [email protected] : Developer :
  2. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
হাসপাতালে চাকরি দেয়ার নামে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে সাড়ে ৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ
শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বাহুবলে সেনাবাহিনীর গাড়ীর সাথে হবিগঞ্জ বিরতিহীন বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষঃ সেনা সদস্য সহ আহত ২০ বিশ্বনাথের লামাকাজী ইউনিয়নের পরিদর্শনে এমপি মোকাব্বির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টিউশন ফি ছাড় দেয়ার সিদ্ধান্ত কসাইকে সঙ্গে নিয়ে মায়ের লাশ পাঁচ টুকরা করে ছেলে: পুলিশ কুকুরের সঙ্গে ‘ফেরেশতার’ তুলনা করলেন অভিনেত্রী তুষ্টি বানিয়াচংয়ে দূর্গাপূজার পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কাসেম চৌধুরী বাহুবলে সাবেক সেনা সদস্যের ফিশারীতে গাছ কর্তন ভারী বৃষ্টি হতে পারে আরো দুই দিন আবহাওয়া অধিদপ্তর বাহুবলে চা শ্রমিকদের জন্য নিরাপদ স্যানিটেশন বায়োফিল টয়লেট সরকারের সাফল্য বহন করছে সাতক্ষীরার ফোর মার্ডার : ৪ জনকে একাই খুন করে নিহতের ভাই রাহানুর

হাসপাতালে চাকরি দেয়ার নামে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে সাড়ে ৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ

  • আপডেটের সময় : অক্টোবর, ১৭, ২০২০, ১২:৪৬ pm
টাকা
ছবি-প্রতীকী
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ওয়ার্ডবয়ের চাকরি দেয়ার নামে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে এক যুবকের সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। এ ঘটনায় আনসারের এক সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর দিকে গ্রেফতার এড়াতে করোনাভাইরাস রোগী হয়েও পালিয়ে গেছেন আনসারের এপিসি আলমগীর হোসেন। অন্যদের সহযোগিতায় শনিবার সন্ধ্যায় ঢামেক হাসপাতাল থেকে তিনি পালিয়ে যান।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সকালে ঢামেক হাসপাতালে মাস্টাররোলে ওয়ার্ডবয় পদে যোগ দিতে আসেন গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের এহসান আহমেদ। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি নিয়োগপত্র নিয়ে তিনি হাসপাতালে আসেন। এ সময় তার সঙ্গে তার মামা বদিউজ্জামান ও আনসার সদস্য কামরুল ইসলাম ছিলেন। ঢামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সন্দেহ হলে তাদের শাহবাগ থানায় হস্তান্তর করা হয়।

ঢামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক আলাউদ্দিন আল আজাদ বলেন, এক যুবক তার কাছে একটি ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে জানায় ঢামেক হাসপাতালে তার ওয়ার্ডবয় হিসেবে চাকরি হয়েছে। তবে নিয়োগপত্র দেখে সন্দেহ হয়। শুরুতেই লেখা বাংলাদেশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এ রকম কোনো মন্ত্রণালয় বাংলাদেশে নেই। এরপর কাগজের বিভিন্ন লেখা দেখে স্পষ্ট হয়- এটি ভুয়া নিয়োগপত্র। ভুয়া নিয়োগপত্রের নিচে স্বাস্থ্য সচিবের স্বাক্ষরও জাল করা হয়েছে। পরে বিষয়টি হাসপাতালের পরিচালককে জানালে তিনি শাহবাগ থানায় জানান। পুলিশ তিনজনকে আটক করে।

জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে- চাকরি দেয়ার নামে প্রতারক চক্রের সঙ্গে ঢামেক হাসপাতালের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসারের এপিসি (সহকারী প্লাটুন কমান্ডার) আলমগীর হোসেন জড়িত। যুবক এহসান শাহবাগ থানায় মামলা করেন। মামলায় বিএসএমএমইউতে কর্তব্যরত আনসার সদস্য কামরুল ইসলামকে গ্রেফতার দেখানো হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার এসআই মো. সেলিম বলেন, কামরুলকে এক দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। রোববার সে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। এ চক্রে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কয়েকজন জড়িত। তবে তাদের নাম বলতে পারেননি। তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সেলিম জানান, মামলার ২নং আসামি এপিসি আলমগীর পলাতক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ঢামেক সূত্র জানায়, করোনা আক্রান্ত হয়ে এপিসি আলমগীর ঢামেক হাসপাতাল-২ এর ৯০১ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। গ্রেফতার এড়াতে তিনি শনিবার সন্ধ্যায় সেখান থেকে পালিয়ে যান। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে ঢামেক হাসপাতালের আনসারের পিসি (প্লাটুন কমান্ডার) মিজানুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে আলমগীর পলাতক। বাদী এহসান আহমেদের মামা বিএসএমএমইউ’র এমএলএসএস বদরুজ্জামান বলেন, কামরুল একদিন তাকে জানায় চাকরির সুযোগ আছে। তখন তিনি তার এসএসসি পাস করা ভাগ্নেকে চাকরির ব্যবস্থা করে দিতে বলেন। সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা দিলে চাকরি হবে।

এরপর আগস্টের মাঝামাঝি কামরুল ও এপিসি আলমগীরের সঙ্গে তিনি দেখা করেন। এ সময় এহসানও ছিল। আরেক দিন তারা সচিবালয়ে যান। এরপর কামরুল ও আলমগীর আমাদের হাতে একটি নিয়োগপত্র তুলে দেন। বদিউজ্জামানের দাবি, এরপর তিনি নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে দুই দফায় সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা তুলে দেন। চাকরিতে যোগদান করতে গিয়ে জানতে পারেন নিয়োগপত্র ভুয়া।

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /১৭ অক্টোবর ২০২০/এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ