1. [email protected] : Developer :
  2. [email protected] : Sylhet Press : Sylhet Press
হৃদরোগ হাসপাতালের সিসিইউতে সম্রাট
শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
জৈন্তাপুরে মসজিদের পাঠদান শিক্ষক কর্তৃক ফ্লাক্সের গরম চা ঢেলে শিশু ছাত্র নির্যতন বাহুবলে প্রয়াত আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহঃ) এর স্মরণ সভা ওসমানীনগরে ভাবির দায়ের আঘাতে আহত দেবর বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন বিশ্বনাথ উপজেলা শাখার কমিটি অনুমোদন দিরাইয়ে চাচাতো ভাইদের হামলায় ইতালি প্রবাসী আহত সৌদিতে বিরোধী দলের আত্মপ্রকাশ আজ ২৪ সেপ্টেম্বর বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মৃদুলের জন্মদিন। দৈনিক সমাচার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রাসেল চৌধুরীরর রোগ মুক্তির জন্য বানিয়াচংয়ে দোয়া মাহফিল ইতালির ভেনিস সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নির্বাচিত মাধবপুরে বিজিবি’র অভিযানে ১০৪ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার

হৃদরোগ হাসপাতালের সিসিইউতে সম্রাট

  • আপডেটের সময় : সেপ্টেম্বর, ১৪, ২০২০, ৩:৩৭ pm
হৃদরোগ হাসপাতালের সিসিইউতে সম্রাট
ছবি-সংগৃহীত
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সিলেটপ্রেস ডেস্ক :: ক্যাসিনোকাণ্ডে গ্রেফতার যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার রাতে তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর সিসিইউতে (করোনারি কেয়ার ইউনিট) রাখা হয়েছে।

এর আগে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহাবুবুল ইসলাম জানান, সম্রাটের অবস্থার অবনতি হলে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ রোববার তাকে হৃদরোগ ইন্সটিটিউট হাসপাতালের সিসিইউতে স্থানান্তর করেছে। তিনি এখন ওখানেই চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে ১৯৫ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ(সিআইডি)। আইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের উপ-পরিদর্শক রাশেদুর রহমান বাদী হয়ে রাজধানীর রমনা থানায় এই মামলা (মামলা নম্বর ১৪) দায়ের করেন।

সম্রাট তার সহযোগী এনামুল হক আরমানের মাধ্যমে ১৯৫ কোটি টাকা সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় পাচার করেছে বলে মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

সিআইডির মামলা সূত্রে জানা গেছে,২০১৪ সালের ২৭ ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত মেসার্স হিস মুভিজ নামে কাকরাইলের একটি অফিসে অবস্থান করে অবৈধ কর্মাকান্ডের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করে সম্রাট। সহযোগী আরমানের মাধ্যমে এসব অর্থ সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ায় পাচার করে।

সিআইডির মামলা সূত্রে আরো জানাগেছে, ২০১১ সালের ২৭ ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সালের ৯ আগস্ট পর্যন্ত ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট সিঙ্গাপুরে ৩৫ বার, মালয়েশিয়ায় তিনবার, দুবাইতে দুইবার এবং হংকংয়ে একবার ভ্রমণ করেছে।

এছাড়া তার সহযোগী এনামুল হক আরমান ২০১১ সালের ১২ ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সালের ১৮ মে পর্যন্ত ২৩ বার সিঙ্গাপুর ভ্রমণ করেছে।

জানাগেছে, ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানের ধারাবাহিকতায় গত বছর সম্রাটকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এরপর তার বিরুদ্ধে রাজধানীর রমনা থানায় অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য আইনে দুটি মামলা দায়ের করা হয়।

এছাড়া জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদকও তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে।

সিলেটপ্রেসবিডিডটকম /১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০/এফ কে


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এই বিভাগের আরও খবর


© All rights reserved © 2020 SylhetPress
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ